April 2020

একজন মানবিক চেয়ারম্যান

আলহাজ্ব মাসুম আহম্মেদ চেয়ারম্যানের নিজস্ব অর্থায়নে ধামগড়ে অসহায় ৩৫০০পরিবারের মাঝে খাদ্য উপহার সামগ্রী বিতরণ।

 নিউজ ডেস্ক : বিপদে সহায়তার হাত বাড়াবো, অসহায়ের মুখে হাসি ফুটাবো’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে বন্দর উপজেলা ধামগড় ইউনিয়নে ৩৫০০শত খাদ্য সহযোগিতা উপহার বিতরন করেন।
আজ ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকাল১১ ঘটিকায় ধামগড় ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড জাঙ্গাল এলাকায় ঈদগাহ মাঠে, আলহাজ্ব মাসুম আহম্মেদ চেয়ারম্যান" র পক্ষ থেকে মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্ত, হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে মানবিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে ৩৬০ টি অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী উপহার বিতরণ করা হয়েছে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন- আলহাজ্ব মাসুম আহম্মেদ, চেয়ারম্যান ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদ। মোঃ হাতেম খন্দকার, বন্দর উপজেলা যুবলীগ সাধারন সম্পাদক। শাহজামান সাবেক যুগ্ন সম্পাদক বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগ,মোঃ ইয়াকুব মুন্সি,
সালাউদ্দিন মাস্টার, নাজমুল বাকী সেলিম মুন্সি, মীর হোসেন, মোঃ আনোয়ার হোসেন, মোঃ শরীফ মোঃ দানেশ, মাইনুল, মহিউদ্দিন, মোশারফ হোসেন আওয়ামী যুবলীগ নেতা, মোঃ জাহাঙ্গীর,
সহ আরো অন্যান্য নেতাকর্মী বৃন্দ।
চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ জানান, করোনা ভাইরাসের মহামারিতে দেশের মানুষ এখন কর্মহীন বিপদগ্রস্থ্য হয়ে পরেছে। এমন সংকট মুহুর্তে ধামগড় ইউনিয়নে আমার নিজেস্ব অর্থয়ানে ধামগড়ে ৩৫০০শত পরিবারের জন্য মানবিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছি, আর ধামগড় ইউনিয়ন সর্বস্তরের সবাই কে আমার অনুরোধ করোনা ভাইরাস থেকে নিজে বাঁচুন অপরকে বাঁচান এবং সকলে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন।
এসময়, হাতেম খন্দকার বলেন, বিশ্বজুড়ে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত বিষয় করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে মহান আল্লাহ তায়ালার রহমত প্রত্যাশা করে সবাইকে বেশী বেশী দোয়া করার জন্য অনুরোধ জ্ঞাপন করেছি, সেই সাথে আজ ধামগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ এর নিজেস্ব অর্থয়ানে ৩৫০০ খাদ্য সামগ্রহী থেকে ২ নং ওয়ার্ডে আমাদের উপস্থিতিতে ৩৬০ টি অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরন করা হয়েছে

কেওঢালা ইটভাটা মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ৮০০ অসহায় পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরন

নিউজ ডেস্ক : বন্দর  উপজেলা  মদনপুর ইউনিয়নের কেওঢালা এলাকায় ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ ঘটিকায় অত্র মদনপুর ইউনিয়নের ৮০০ শত নিম্ন আয়ের ও অসহায় পরিবারের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়া হয়েছে।

খাদ্যসামগ্রীর প্রতিটি প্যাকেটে চাল, ডাল, আলু ও তেল ছিলো বলে জানা গেছে। এসময় বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ রশিদ, মদনপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম এ গাজী সালাম,ও বন্দর উপজেলা ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ মমিন উল্লাহ খান(KBM), আয়নাল হক ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আজিজুল হক আজিজ( 909), হাজী আমানুল্লাহ (505), হাজী শফিউল্লা(SKB), হাজী মোক্তার হোসেন (BBM), হাজী আওলাদ হোসেন (MAB), ইলিয়াস মোল্লা (MBM) হাজী আমানুল্লা (TATA), হাজী গোলাম মোস্তফা (BRB),আলমগীর (MBC) 1/2 , হাজী গিয়াস উদ্দিন (707)মোঃপলাশ (MBM),আক্তার মোল্লা, রবিউল (ABC),মিজানুর রহমান( DBC) সহ সকল ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির সম্পৃক্ত ও স্বেচ্ছাসেবকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিতরণকালে এসময় সকল ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনগণকে সচেতন করতে এবং অসহায়রা যাতে খাদ্য সংকটে না পড়ে সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। প্রধানমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে আমরা অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছি। কোন ধরণের লোক সমাগম ছাড়া আমরা তালিকা করে প্রতিটি ওয়ার্ডে খাদ্যসামগ্রী পাঠিয়ে দিচ্ছি এবং সেখান থেকে স্বেচ্ছাসেবকদের সমন্বয়ে অসহায়দের ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়া হবে। দেশের স্বার্থে সমাজের বিত্তবানদের কাছে বিনীত অনুরোধ থাকবে, আপনারা দয়া করে যার যার অবস্থান থেকে অসহায়দের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। আর অবশ্যই সকলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। সবাই ঘরে থাকুন ও বিনা প্রয়োজনে কেউ ঘর থেকে বের হবেন না। আসুন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকলে সতর্ক থাকি এবং বেশী বেশী আল্লাহর কাছে দোয়া চাই’।

 যুবলীগ নেতা জাকিরের উদ্যোগে অসহায় পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী উপহার দিলেন’ আল আমিন

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে লকডাউনে থাকা কর্মহীনদের পাশে এসে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেন পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেন । পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের উদ্যোগে বাড়ি বাড়ি পৌছে দেয়া হচ্ছে রমজানের ইফতার সামগ্রী।
বুধবার (২৯ এপ্রিল) সকাল থেকে পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেনর ব্যক্তিগত উদ্যোগে পিরোজপুর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামের কর্মহীন,মধ্যবিত্ত ও নিন্ম আয়ের মানুষের ঘরে ঘরে,ছোলাবুট, চিনি, ট্যাং, মুড়ি,খেজুর, এসব ইফতার সামগ্রী গোপনে দিয়ে আসছে পিরোজপুর ইউনিয়ন এর বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আল-আমিন হোসেন অসহায় কর্মহীন পরিবারের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।
পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জাকির হোসেন বলেন, করোনা ভাইরাসের মহামারিতে দেশের মানুষ এখন কর্মহীন বিপদগ্রস্থ্য হয়ে পরেছে। এমন সংকট মুহুর্তে পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবলীগ এসব মানুষের পাশে থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, অনেক মানুষ আছে যাদের ঘরে খাবার নেই, ইফতার সামগ্রী নেই।
প্রয়োজনে তারা না খেয়ে ঘরে পরে থাকবে,অথচ মানুষের কাছে সাহায্য নিতে আসতে পারছে না। এসব মানুষদের কথা চিন্তা করে আমরা সকালে বাড়িতে ইফতারসহ খাদ্যসামগ্রী গোপনে পৌছে দিচ্ছি। পুরো রমজান মাস জুড়ে তাদের এ সেবা কার্যক্রম চালু থাকবে বলে জানা

সোনারগাঁয়ের সমাজের সুবিধাবঞ্চিত পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ।

নিউজ ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে সমাজের সুবিধাবঞ্চিত ও অসহায় পরিবারে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।
বুধবার (২৯ এপ্রিল) সকালে সোনারগাঁ উপজেলার কাঁচপুর চাঁদমহল সিনেমা হলের পাশের ভাসমান ৫০টি পরিবারকে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ত্রান বিতরণ করেন সোনারগাঁ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল মামুন।
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৪৫ এলএলআরএস ব্যাটালিয়নের মেজর সাজ্জাদুল হাসানের নেতৃত্বে ভাসমান পরিবারে ত্রান বিতরণে কাঁচপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবীরা সহযোগিতা করেন।

 প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সোনারগাঁয়ের নয়াপুর হাটে খাজনা আদায়ের অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক : প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মঙ্গলবার সোনারগাঁয়ের সাদিপুর ইউনিয়নের নয়াপুর হাটে প্রতিটি মাছের ভিট থেকে ১০০ টাকা এবং কাঁচামালের থেকে ৪০ টাকা করে খাজনা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
ব্যবসায়ীরা জানায়, সম্প্রতি করোনাভাইরাসের প্রেক্ষাপটে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নয়াপুর হাটে খাজনা আদায় করতে নিষেধ করা হলেও মঙ্গলবার আনোয়ার মুন্সী ও আমির প্রতিটি মাছের ভিট থেকে ১০০ টাকা এবং কাঁচামালের ভিট থেকে ৪০ টাকা করে খাজনা আদায় করেছে।
ব্যবসায়ীরা দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আজ বৃষ্টির কারণে এই নিচু স্থানে পানি জমে যাওয়ায় আশানুরূপ বেচাকেনা হয়নি। তাই ব্যবসায়ীদের লোকসান হলেও খাজনার ব্যাপারে কেউ ছাড় পায়নি। তাই প্রশাসনের উচিত এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া।
এ ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম জানান, প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিষেধ করার পরেও খাজনা আদায় করার বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। এই ঘটনায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


 সোনারগাঁয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে দুটি কোম্পানীকে ২লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

নিউজ ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে একটি খাবার প্রস্তুতকারী ও একটি প্লাস্টিক কোম্পানীকে ২লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।
শনিবার(২৫এপ্রিল)দুপুরে উপজেলা সরকারী কমিশনার (ভুমি) আল মামুন এ অভিযান পরিচালনা করেন।
সোনারগাঁ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আল মামুন আজকের সংবাদ ডটকমকে জানান,শনিবার দুপুরে উপজেলার জামপুর এলাকার মেসার্স আরাবি ফুড প্রোডাক্টস কে অনুমোদন বিহীন ও ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে TANGO (TANG) ও STRONG সফট ড্রিংকিং পাউডার উৎপাদন করায় ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ এর ৪১, ৪২ ও ৫০ ধারায় ২লাখ টাকা ও পিরোজপুর ইউনিয়নের গঙ্গানগর নিউ টাউন এলাকায় মেসার্স সারা এন্টারপ্রাইজকে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে কারখানা খোলা রাখায় সংক্রমন রোগ প্রতিরোধ নিয়ন্ত্রন ও নির্মূল আইনের ২০১৮ এর ২৫(২) ধারায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযান শেষে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল মামুন সাংবাদিকদের বলেন,অভিযান আগামীতে ও অব্যাহত থাকবে। যাতে করে ভোক্তাদের ভেজাল খাদ্য পরিবেশন করতে না পারে সে ব্যাপারে আমরা কঠোর ভাবে মনিটরিং করবো।
সোনারগাঁবাসী ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযানকে সাধুবাদ জানান,আগামীতেও অভিযান অব্যাহত থাকে সে ব্যাপারে নজর রাখতে প্রশাসনের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছেন তারা।

ধামগড়ে চেয়ারম্যান মাসুমের নিজ অর্থায়নে মানবিক সহায়তা দিলেন ৩৫০০ পরিবারের মাঝে।

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দিন দিন বেড়েই চলছে এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন দিন এনে দিন খাওয়া মানুষেরা। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে মহামান্বিত মাস রমজান । করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দীর্ঘ লকডাউন থাকার কারণে সাধারণ মানুষ পড়েছে বিপাকে। তাদের মুখে অন্ন তুলে দিতে, করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত হওয়ার ভয়কে উপেক্ষা করে দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানার ধামগড় ইউনিয়নের সুযোগ্য চেয়ারম্যান আলহাজ মাসুম আহাম্মেদ মাসুম এর নিজস্ব অর্থায়নে, ৩৫০০ অসহায় পরিবারের মাঝে মানবিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলেন।
এসময় চেয়ারম্যান মাসুম আহমেদ বলেন করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব লকডাউন এ থাকা হতদরিদ্র মানুষের মাঝে সরকারি সহায়তা যথার্থ ভাবে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।
সেই সাথে আমি আমার ইউনিয়নে ২১ জন বিশিষ্ট একটি স্বেচ্ছাসেবক কমিটি গঠন করে কমিটির মাধ্যমে আমার ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ড পর্যায়ে । যারা হতদরিদ্র আছে যাদের কাছে সরকারি সহায়তা এখনো পৌঁছায়নি, এবং যারা ভাসমান ও মধ্যবিত্ত পরিবার আছে যারা কারো কাছে চাইতে পারেনা, তাদের মাঝে এই মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেবার চেষ্টা করেছি এবং করোনা ভাইরাস যত দিন থাকবে ততদিন এই মানবিক সহায়তা কার্যক্রম চালু থাকবে।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার আবু সাঈদ,৪ নং ওয়ার্ডের নবীর হোসেন মেম্বার ফয়েজ মেম্বার, আওয়ামী লীগের নেতা আঃ রশিদ, বিল্লাল সরদার ও সখিনা বেগম উপস্থিত ছিলেন।

সোনারগাঁয়ে এমপি খোকার আহ্বানে কৃষকের ধান কেটে দিলো পুলিশ ও মহাজোটের নেতাকর্মীরা

নিউজ ডেস্ক : সোনারগাঁয়ে এমপি খোকার আহ্বানে কৃষকের ধান কেটে দিলো পুলিশ ও মহাজোটের নেতাকর্মীরা
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ও স্থানীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিনা পারিশ্রমিকে কৃষকদের ধান কেটে দিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন,পুলিশ,জাতীয় পার্টি ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।
শুক্রবার(২৪এপ্রিল) সকালে উপজেলার কাজীপাড়া গ্রামে ওসমান নামের এক কৃষকের এক বিঘা জমির ধান বিনা পারিশ্রমিকে কেটে দিয়েছে। তবে স্থানীয় যে কয়জন শ্রমিক ধান কাটায় অংশ নেয় তাদেরকে এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার পক্ষ থেকে ন্যায্য পারিশ্রমিক ও পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী উপহার দেওয়া হয়েছে।
ধান কাটায় উপস্থিত ছিলেন,সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ শরীফ, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাসুদুর রহমান মাসুম, সাদিপুর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আবুল হাশেম, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ লুৎফর রহমান শাহীন সহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, জাতীয় পার্টি ও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।

ধামগড়ে আজগর হোসেন মাষ্টার পরিবারের পক্ষ থেকে একশত অটো রিক্সা,ভ্যান, সি এন জি চালকদের নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান

নিউজ ডেস্ক : ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা ভাইরাস, এ ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সবাই বাড়িতে ও ঘরে থাকুন। ঘরবন্দী হয়ে আছে অনেক মানুষ। করোনা ভাইরাসের কারনে কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমজীবীরা খেটে খাওয়া এসব মানুষ, সমগ্র বাংলাদেশে এখন লগডাউন এর কারনে নিরুপায় হয়ে হাত গুটিয়ে বাড়িতে বসে আছেন। এখনই সময় মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়ানো। নারায়নগঞ্জ বন্দর উপজেলা ধামগড় ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড কাজী পাড়া এলাকায় মরহুম আজগর হোসেন মাষ্টার, পরিবারের পক্ষ থেকে একশত অটো রিক্সা,ভ্যান, সি এন জি চালকদের নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান। সেই সাথে প্রতিটি ঘরে ঘরে মরহুম আজগড় আলী মাষ্টারেরর ছেলে। চ্যানেল এস বন্দর উপজেলা প্রতিনিধি সিনিয়র সাংবাদিক এস এম নাসের নিজ দায়িত্বে অর্থ প্রদান করা হয়। বৃহস্পতিবার ২৩ এপ্রিল সকাল ৯ টার সময় কাজীপাড়া এলাকায়, একশত অটো রিক্সা,ভ্যান, সি এন জি চালকদের নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান। সেই সাথে প্রতিটি ঘরে ঘরে অসহায়-দুস্থদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে নগদ অর্থ সহায়তা পোছে দেওয়া হয়, এবং সাথে করোনা ভাইরাস সচেতনামূলক প্রচার ও প্রচারণা করা হয়। এই মহৎ উদ্যোগকে এলাকার সর্বস্তরের সবাই সাধুবাদ জানিয়েছেন 

করোনা ভাইরাস দুর্যোগ মোকাবেলায় মাঠে ইউপি সচিবদের অতুলনীয় ভূমিকা

নিউজ ডেস্ক :সারা বিশ্বের মানুষ করোনা ভাইরাসে আতঙ্ক, মানুষ ঘর বন্দি, কিন্তু ইউপি সচিবরা ঘরে বসে নেই, সারা বাংলাদেশে ৪৫৭১ জন ইউপি সচিব জীবনটাকে বাজি রেখে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা মাঠ পর্যায়ের সরকারে সকল কাজ বাস্তবায়নে ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন একযোগে। তবে এজন্য ইউপি সচিবদের সংগঠন বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি( বাপসা) সরকারী প্রনোদণা ও স্বাস্থ্যবীমার অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছেন,জানা যায় ইউনিয়ন পরিষদ সচিবরা এ দুর্যোগকালীন মুহুর্তে দু:স্থ অসহায় রিকশাচালক, সিএনজি চালক, সিএনজি চালক, পরিবহন শ্রমিক, কর্মহীন, দিনমজুর,ফেরীওয়ালা, প্রতিবন্ধী,বেদে,হিজরা, ভবঘুরে, ভিক্ষুক,কৃষি শ্রমিক,মৎসজীবি, রেস্টুরেন্ট হোটেল শ্রমিক, চায়ের দোকানদার, ও অন্যান্য উপকার ভোগীদের তালিকা জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় প্রস্তুত করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন ইউপি সচিবরা। বিভিন্ন মন্ত্রনালয় জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন প্রকার দাপ্তিরিক কাজ রির্পোট / রির্টান প্রেরন, জরুরি ত্রান কার্য ক্রম হিসেবে ভিজিএফ, ভিজিডি,জিআর চাল উত্তোলন, গুদামজাত করন ও বিতরন। ইউনিয়ন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য হিসেবে প্রবাসীদের তালিকা তৈরি, হোমকোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করছেন। জীবনের ঝুকি নিয়ে প্রতিদিন জনগনের দ্বারে দ্বারে সেবা প্রধান করছেন তারা। এই বিষয়ে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা) এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ দেলওয়ার হোসেন বলেন , মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার আলোকে সারা বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ৪৫৭১ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব জিবনের ঝুকি নিয়ে নোবেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা প্রনোদণার অন্তর্ভুক্তির ও স্বাস্থ্যবীমার দাবি জানাচ্ছি। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতির (বাপসা) এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ দেলওয়ার হোসেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত করোনা ভাইরাসের ঝুকি নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করা সহ স্বাস্থ্যবীমা প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন । এমতাবস্থায় ইউনিয়ন পরিষদ সচিবদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যবীমা প্রধান সহ করোনা ভাইরাস যুদ্ধা হিসেবে ঘোষিত প্রনোদণার অন্তর্ভুক্ত করনের নিমিত্তে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলকে জরুরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা ভাইরাসের ঝুকি নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করা ঘোষণা স্বাস্থ্যবীমা প্রদানের ঘোষনা দিয়েছেন। ইউনিয়ন পরিষদের সচিবদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যবীমা প্রদানসহ করোনা ভাইরাস যোদ্ধা হিসেবে ঘোষিত প্রনোদণার অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানাই

 সোনারগাঁয়ের নয়াপুর বাজারে সাপ্তাহিক দুই হাটে সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা নেই

নিউজ ডেস্ক : সোনারগাঁ উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের নয়াপুর বাজারে সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা না করেই প্রতি শুক্রবার ও মঙ্গলবার বসছে সাপ্তাহিক হাট। এতে ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী মারাত্মকভাবে করোনাভাইরাসের ঝুঁকিতে রয়েছে।
প্রশাসনের নিকট এলাকাবাসীর দাবি, করোনা ঝুঁকি কেটে যাওয়ার আগ পর্যন্ত এই হাটটি নয়াপুর সম্মেলনের মাঠের স্থানান্তর করা হোক।
কেননা বিশাল আকৃতির ওই মাঠে খুব সহজেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ক্রেতা ও বিক্রেতারা কেনাবেচা করতে পারবেন। এতে উভয়েই করো না ঝুঁকি থেকে নিরাপদ থাকবে।
এবিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল মামুন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, আজ বিকেলেই নয়াপুর বাজার হাট ও কাঁচাবাজার পাশের খোলা মাঠে স্থানান্তর করবে প্রশাসন।

৫শত অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন ইঞ্জিনিয়ার মাসুম

নিউজ ডেস্ক :  
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ  উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম তার নিজস্ব অর্থায়নে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করছেন।
আজ (১৬ এপ্রিল) বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সোনারগাঁ পিরোজপুর ইউনিয়নের  ১ হইতে ৩ নং ওয়ার্ডে প্রায় ৫ শত পরিবারের মধ্যে নিত্য প্রয়োজনিয় ত্রান সামগ্রী বিতরণ করেন। চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম নিজে উপস্থিত থেকে এই সব ত্রান সামগ্রী বিতরণ করছেন।
প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সময় নিরলস ভাবে পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তার ইউনিয়নবাসীর নিকট প্রতিদিন গ্রামে গ্রামে নিজে উপস্থিত হয়ে দুস্ত মানুষের সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন বলে জানা যায়। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক যখন যতটুকু সম্ভব সহায়ক ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের এই চেয়ারম্যান।
প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে যে পরিমাণ খাদ্য দ্রব্য পেয়েছেন পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তার সুষ্ঠু বিতরণ করতে সক্ষম হয়েছেন। সোনারগাঁ নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলামের তত্ত্বাবদানে মাসুম চেয়ারম্যান প্রতিটি ওয়ার্ডের মেম্বারদের মাঝে অসহায় গরীব দুঃখী মানুষের সেবায় পৌঁছে দিয়েছেন ত্রান সামগ্রী। আজ নিজ তহবিল থেকে ৫০০ পরিবারকে ত্রান-সাহায্য বিতরণ করা সময় সবার প্রতি অনুরোধ করে বলেন,  আল্লাহর রহমতে আমি আছি আপনাদের সকলের পাশে। দয়া করে আপনারা শুধু ঘরে থাকুন আল্লাহর এবাদাত করুন। মহান আল্লাহ তালার রহমত ছাড়া আমরা কেউ নিরাপদ নই।আমি চেয়ারম্যান হিসেবে নয় আমি আপনাদের সেবক হিসাবে আছি আপনাদের সকলের পাশে আছি। দয়া করে সবাই নিজ দায়িত্বে ঘরে অবস্থান করুন।
পিরোজপুর ইউনিয়ন গরীব দুঃখী অসহায় খেটে খাওয়া দিন মজুর শ্রমিক বিভিন্ন পেশাদার লোকজন ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম চেয়ারম্যানকে পাশে পেয়ে অনেকই আবেগে ভেসে ওঠেন। সাধারণ মানুষের ভালবাসা দেখে চেয়ারম্যান বলেন, আমি শুধু আপনাদের সন্তান কারো ভাই কারো বন্ধু। আমি চেয়ারম্যান হিসেবে নয় সন্তান ও বন্ধু হিসেবে দোয়া করি আল্লাহ আপনাদের ভালো রাখেন।আমি আছি আপনাদের সকলের পাশে। পিরোজপুর ইউনিয়ন শিল্পনগরী এলাকা হওয়ায় বাংলাদেশর বিভিন্ন বিভাগ ও জেলার লোকজনের বসবাস তাই করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সম্ভবনা ও এখানে বেশি।
নারায়ণগঞ্জ-৩ সোনারগাঁ সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার তত্ত্বাবধানে এবং নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম এর সার্বিক সহযোগিতা ও থানা পুলিশ কর্মকর্তাদের কঠোর নজরদারীর কারনে এবং পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম এর প্রচেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ রয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণে আরো ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন শনাক্ত হয়েছে ৩৪১ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৬০ জনের। আর সব মিলিয়ে করোনার উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে মোট ১৫৭২ জনের শরীরে। বিগত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে বৈশ্বিক মহামারিতে পরিণত করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২১ লাখ ছুঁইছুঁই। মারা গেছেন এক লাখ ৩৪ হাজারেরও বেশি মানুষ। তবে পাঁচ লাখেরও বেশি রোগী ইতিমধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

করোনায়: সোনারগাঁয়ে বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ

নিউজ ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের টিপরদী এলাকায় ইউসান নিট কম্পোজিট লিমিটেডের শ্রমিকরা। সাত মাসের বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করেছেন।
বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে ১০ পযর্ন্ত কারখানার প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছেন তারা। দেড় ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।
বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে কারখানার শ্রমিকরা। করোনায় লকডাউনের কারণে কারখানা বন্ধ থাকায় বর্তমানে চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছেন তারা।
শ্রমিকরা জানান, গত কোরবানীর ঈদের পর থেকে কোনো বেতন ভাতা পাননি। কারখানা কর্তৃপক্ষ বেতন দেই দিচ্ছি করে তাদের সাত মাসের বকেয়া পড়ে আছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে দোকানদাররা তাদের বাকিতে খাদ্যদ্রব্য দিচ্ছে না। বাড়িওয়ালাও তাদের বাড়ি ভাড়া দেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছেন।
এ ব্যাপারে ইউসান নিট কম্পোজিট লিমিটেডের ম্যানেজার মো: আকতার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
কাঁচপুর শিল্প পুলিশের ওসি মনির হোসেন বলেন, শ্রমিকদের বেতন ভাতা পরিশোধের আশ্বাসে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। মালিকপক্ষের সাথে কথা বলে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করা হবে।

জাঙ্গাল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ কমিটির উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরন

নিউজ ডেস্ক : ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা ভাইরাস। মরণঘাতী রোগ এ ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে ঘরবন্দী হয়ে আছে অনেক মানুষ। প্রশাসনের তরফ থেকে করোনা মোকাবেলায় সচেতনতামুলক মূলক প্রচার প্রচারণা করা হচ্ছে। করোনা ভাইরাসের কারনে কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমজীবীরা খেটে খাওয়া এসব মানুষ, সমগ্র বাংলাদেশে এখন লগডাউন এর কারনে নিরুপায় হয়ে হাত গুটিয়ে বাড়িতে বসে আছেন। এখনই সময় মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়ানো। নারায়নগঞ্জ বন্দর উপজেলা ধামগড় ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড জাঙ্গাল এলাকায় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের উদ্যোগে এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগীতায় ৪২৪ টি অসহায় দরিদ্র পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গল বার ১৪ এপ্রিল বিকাল ৫ টার সময় গ্রামের অলি-গলিতে পাড়া-মহল্লায়। স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে অসহায়-দুস্থদের বাড়ি বাড়ি এগিয়ে খাদ্যসামগ্রী পোছে দেওয়া হয়, এবং সাথে করোনা ভাইরাস সচেতনামূলক প্রচার ও প্রচারণা করা হয়। এই মহৎ উদ্যোগকে এলাকার সর্বস্তরের সবাই সাধুবাদ জানিয়েছেন।জাঙ্গাল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সভাপতি ও আয়নাল হক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আজিজুল হক আজিজ বলেন, প্রতিটা মানুষ সবাই আমার আপনজন,এলাকাবাসীর সবার সহযোগীতায় চেষ্টায় ৪২৪ টি পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দিতে পেরে অনেক ভালো লাগছে,আপনারা জানেন গত শনিবার আয়নাল হক ফাউন্ডেশনের পক্ষ্য থেকে ধামগড় ইউনিয়ন ১ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। উক্ত মসজিদের সহ সভাপতি, ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার ফয়েজুর রহমান ফয়েজ । বলেন আপনারা সবাই ঘরে থাকুন,সচেতন থাকুন পরিবারের প্রতি খেয়াল রাখুন আমরা আপনাদের পাশে আছি এবং থাকবো,ইনশাল্লাহ খাবারের কষ্ট আপনাদের করতে হবেনা।
এসময় উপস্থিত ছিলেন,আমানুল্লাহ আমান মোল্লা বিশিষ্ট সমাজ সেবক,শাহজাহান সাজা মোল্লা সহসভাপতি জাঙ্গাল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ।আব্দুল হান্নান সাধারণ সম্পাদক জাঙ্গাল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ। জজমিয়া মোল্লা,জসিম দেওয়ান,আমির হামজা,নুর মোহাম্মদ, হাফেজ সারোয়ার সাদ্দাম সহো এলাকার যুবসমাজ।



সোনারগাঁও থেকে খুনি মাজেদের লাশ ৭২ ঘন্টার মধ্যে অপসারণ চাই….মাহফুজুর রহমান কালাম

নিউজ ডেস্ক : সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম বলেন,সোনারগাঁও থেকে বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের লাশ ৭২ঘন্টার মধ্যে অপসারণ করতে হবে। আমরা জাতীর পিতার হত্যাকারীর লাশ এই সোনারগাঁওয়ের পবিত্র মাটিতে রাখতে দেবো না। প্রশাসনের কাছে আমাদের দাবী থাকবে যদি ৭২ ঘন্টার মধ্যে খুনি মাজেদের লাশ সোনারগাঁও থেকে অপসারণ না করা হয় তার দেহাবশেষ তুলে আমরা নদীতে ভাসিয়ে দিবো। খুনি মাজেদের জন্য সোনারগাঁওকে অপবিত্র করতে দেবো না।
আজ সোমবার সকাল ১১টায় ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের মোগড়াপাড়া চৌরাস্তায় অবস্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের সামনে খুনি মাজেদের লাশ অপসারণের দাবীতে মানববন্ধনে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম এসব কথা বলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আব্দুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকরের পর তার লাশ কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের হোসেনপুর এলাকায় দাফন করা হয়েছে।
মাজেদের শ্বশুরবাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে শনিবার দিনগত রাত ৩টার দিকে তার লাশ দাফন করা হয়।এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনির লাশ সোনারগাঁওয়ে দাফন করার খবর সকালে বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সাধরণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
লাশ দাফনের পরের দিন সকালে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালামের নির্দেশে তার ছোট ভাই জেলা পরিষদের সদস্য ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেল মাহমুদ সোনারগাঁও থেকে খুনি মাজেদের লাশ অপসারণের প্রতিবাদে মূখর হয়ে উঠেন। অনেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সোনারগাঁওয়ে মাজেদের লাশ দাফন করায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ ও লাশ অপসারণের দাবি জানান।
সোনারগাঁও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ খুনি মাজেদের লাশ সোনারগাঁওয়ে দাফন করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
মানববন্ধনে বক্তারা একটাই দাবী জানান মাজেদের লাশ অপসারণ না করা হলে তা কবর থেকে তুলে মেঘনা নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হবে।
মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম, জেলা যুব আইনজীবি পরিষদের সভাপতি এডভোকেট ফজলে রাব্বি, সাবেক চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দীন সাবু,উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেল মাহমুদ,পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী আমজাদ হোসেন,আওয়ামীলীগ নেতা করিম,আওয়ামীলীগ নেতা শামসুজ্জামান সামসু,উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল ইসলাম বিজয়, পিরোজপুর ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন, সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগ সহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সোনারগাঁওয়ে কবর দেওয়া হলো খুনি মাজেদের লাশ, প্রতিবাদের ঝড়ঃ লাশ সরিয়ে নিতে যুবলীগ নেতা আলী হায়দারের দাবী

নিউজ ডেস্ক : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও শিশু শেখ রাসেলের আত্মস্বীকৃতি খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ চৌধুরীর লাশ সোনারগাঁও এর শম্ভুপুরা ইউনিয়নের হোসেনপুরে রাতের আধারে তড়িঘড়ি করে কবর দেওয়া হয়। সকালে এ খবর জানাজানি হলে সোনারগাঁও এলাকা জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। সোনারগাঁওবাসী দাবী তোলেন কুলাঙ্গার খুনির লাশ সোনারগাঁওয়ে থাকতে পারেনা।

 সোনারগাঁও ইতিহাসের ঐতিহ্যপূর্ণ এলাকা। মোঘল আমলের বাংলার রাজধানী অত্যন্ত পবিত্র ভূমি। এখানে বাংলার কুলাঙ্গারের লাশ থাকতে পারবেনা। সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী হায়দার প্রতিবাদী জনতার পক্ষ থেকে অতী দ্রুত মাজেদের কবর সোনারগাঁও থেকে স্থানান্তরের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে দেখা করে জোড়ালো ভাবে উপস্থাপন করে। এসময়ে তার সাথে যুবলীগের অন্যান্য নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত-শনিবার দিনগত রাত ১২টা ১ মিনিটে আবদুল মাজেদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়। পরে তার লাশ দাফন নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়। তার গ্রামের বাড়ি ভোলায় দাফনের কথা থাকলেও সেখানকার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও স্থানীয়দের প্রবল আপত্তির মুখে ঝুঁকি নিতে রাজি হয়নি ভোলার প্রশাসন।

শেষ পর্যন্ত শ্বশুরবাড়ি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে দাফনের সিদ্ধান্ত হয়।

এর আগে বিকালে লালমোহন উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এমপি শাওন বলেন, খুনি মাজেদের লাশ ভোলাবাসী গ্রহণ করবে না।

মাজেদের লাশ প্রয়োজনে বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে বলেন এমপি শাওন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম বলেন, খুনি মাজেদের জন্মস্থান বরিশালে তাকে সোনারগাঁয়ে কেনো দাফন করা হলো? তার মতো খুনির কবর সোনারগাঁয়ের মতো পবিত্র মাটিকে অপবিত্র করেছে। অনতিবিলম্বে এই খুনি মাজেদের কবর সোনারগাঁও থেকে অপসারণ করতে হবে। তা নাহলে সোনারগাঁওয়ের আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা এবং সচেতন মহল আরও কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

এ বিষয়ে সোনারগাঁওয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা জামাল মিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করেছে এই মাজেদ। তার কবর এই সোনারগাঁওয়ের মাটিতে তথা বাংলার মাটিতে রাখতে দেয়া হবে না।   তিনি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, অনতিবিলম্বে এই লাশ অপসারনের ব্যবস্থা করে সোনারগাঁবাসীকে কলঙ্কমুক্ত করতে হবে।

সোনারগাঁওয়ে কবর দেওয়া হলো খুনি মাজেদের লাশ, প্রতিবাদের ঝড়ঃ লাশ সরিয়ে নিতে যুবলীগ নেতা আলী হায়দারের দাবী

নিউজ ডেস্ক : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও শিশু শেখ রাসেলের আত্মস্বীকৃতি খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ চৌধুরীর লাশ সোনারগাঁও এর শম্ভুপুরা ইউনিয়নের হোসেনপুরে রাতের আধারে তড়িঘড়ি করে কবর দেওয়া হয়। সকালে এ খবর জানাজানি হলে সোনারগাঁও এলাকা জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। সোনারগাঁওবাসী দাবী তোলেন কুলাঙ্গার খুনির লাশ সোনারগাঁওয়ে থাকতে পারেনা।

 সোনারগাঁও ইতিহাসের ঐতিহ্যপূর্ণ এলাকা। মোঘল আমলের বাংলার রাজধানী অত্যন্ত পবিত্র ভূমি। এখানে বাংলার কুলাঙ্গারের লাশ থাকতে পারবেনা। সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী হায়দার প্রতিবাদী জনতার পক্ষ থেকে অতী দ্রুত মাজেদের কবর সোনারগাঁও থেকে স্থানান্তরের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে দেখা করে জোড়ালো ভাবে উপস্থাপন করে। এসময়ে তার সাথে যুবলীগের অন্যান্য নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত-শনিবার দিনগত রাত ১২টা ১ মিনিটে আবদুল মাজেদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়। পরে তার লাশ দাফন নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়। তার গ্রামের বাড়ি ভোলায় দাফনের কথা থাকলেও সেখানকার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও স্থানীয়দের প্রবল আপত্তির মুখে ঝুঁকি নিতে রাজি হয়নি ভোলার প্রশাসন।

শেষ পর্যন্ত শ্বশুরবাড়ি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে দাফনের সিদ্ধান্ত হয়।

এর আগে বিকালে লালমোহন উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এমপি শাওন বলেন, খুনি মাজেদের লাশ ভোলাবাসী গ্রহণ করবে না।

মাজেদের লাশ প্রয়োজনে বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে বলেন এমপি শাওন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম বলেন, খুনি মাজেদের জন্মস্থান বরিশালে তাকে সোনারগাঁয়ে কেনো দাফন করা হলো? তার মতো খুনির কবর সোনারগাঁয়ের মতো পবিত্র মাটিকে অপবিত্র করেছে। অনতিবিলম্বে এই খুনি মাজেদের কবর সোনারগাঁও থেকে অপসারণ করতে হবে। তা নাহলে সোনারগাঁওয়ের আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা এবং সচেতন মহল আরও কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

এ বিষয়ে সোনারগাঁওয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা জামাল মিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করেছে এই মাজেদ। তার কবর এই সোনারগাঁওয়ের মাটিতে তথা বাংলার মাটিতে রাখতে দেয়া হবে না।   তিনি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, অনতিবিলম্বে এই লাশ অপসারনের ব্যবস্থা করে সোনারগাঁবাসীকে কলঙ্কমুক্ত করতে হবে।

নিউজ ডেস্ক :   জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি মাজেদের লাশ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থেকে অপসারণের দাবি জানিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও স্থানীয়রা।
এলাকাবাসীর দাবি, রাতের আঁধারে জাতির এ কলঙ্ক এনে দাফন করায় আমাদের কলঙ্কিত করা হয়েছে। এ কলঙ্ক মোচনের জন্য এ লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে সোনারগাঁওকে কলঙ্কমুক্ত করা হোক।
শম্ভুপুরা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি টিটু বলেন, ‘এ ইউনিয়নে এ খুনির লাশের কবর রাখতে দেওয়া হবে না। এ খুনির লাশ উত্তোলন করে আমাদের কলঙ্ক দুর করতে হবে।’শম্ভুপুরা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা হাজী মোতালেব মিয়া বলেন, ‘আমাদের ঘুমের ঘোরে রেখে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি মাজেদকে তার চাচা শ্বশুর আলী আক্কাস এখানে দাফন করেছে।  এ লাশ উত্তোলন করে সরিয়ে এ ইউনিয়নবাসীকে কলঙ্ক মুক্ত করতে হবে। নয়তো সারা জীবন এ কলঙ্ক আমাদের বয়ে বেড়াতে হবে।’
সময় বক্তব্য দেন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট সোনারগাঁ শাখার সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম, স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোতালিব, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেল মাহামুদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল ইসলাম বিজয় ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানকমান্ড সোনারগাঁ শাখার সভাপতি মেহের নিগার সোনিয়া প্রমূখ।
বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট সোনারগাঁ শাখার সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের লাশ কোনো অবস্থাতেই সোনারগাঁয়ের মাটিতে রাখতে চাইনা। অবিলম্বে এই লাশ উঠিয়ে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে দাফন করা হোক।

আয়নাল হক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ধামগড়ে ১ হাজার অসহায় পরিবারকে খাদ্য সহায়তা

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সমগ্র নারায়ণগঞ্জ জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করায় দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষরা আর্থিক ও খাবার সংকটে পড়েছে বিধায় বন্দর উপজেলাধীন ধামগড় ইউনিয়নের জাঙ্গালে প্রতিষ্ঠিত ‘আয়নাল হক ফাউন্ডেশন’ এর পক্ষ থেকে উক্ত ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, মরহুম আয়নাল হক চেয়ারম্যানের সুযোগ্য পুত্র, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব আজিজুল হক (আজিজ) এবং তার ছোট ভাই ও ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল হোসেনের সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতায় ১১ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যায় অত্র ধামগড় ইউনিয়নের ১ হাজার নিম্ন আয়ের ও অসহায় পরিবারের বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়া হয়েছে।

খাদ্যসামগ্রীর প্রতিটি প্যাকেটে চাল, ডাল ও আলু ছিলো বলে জানা গেছে। এসময় বন্দর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আছমা সুলতানা নাসরীন, ধামগড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা শরীফ হোসেন, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন দেওয়ান, ২নং ওয়ার্ড মেম্বার ফয়েজুর রহমান মোল্লা, ১নং ওয়ার্ড মেম্বার বাবুল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক পার্টি নেতা রফিকুল ইসলাম সহ বিতরণে সম্পৃক্ত স্বেচ্ছাসেবকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিতরণকালে কামাল হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনগণকে সচেতন করতে এবং অসহায়রা যাতে খাদ্য সংকটে না পড়ে সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। প্রধানমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে আমরা অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছি। কোন ধরণের লোক সমাগম ছাড়া আমরা তালিকা করে প্রতিটি ওয়ার্ডে খাদ্যসামগ্রী পাঠিয়ে দিচ্ছি এবং সেখান থেকে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি ও স্বেচ্ছাসেবকদের সমন্বয়ে অসহায়দের ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়া হবে। দেশের স্বার্থে সমাজের বিত্তবানদের কাছে বিনীত অনুরোধ থাকবে, আপনারা দয়া করে যার যার অবস্থান থেকে অসহায়দের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। আর অবশ্যই সকলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। সবাই ঘরে থাকুন ও বিনা প্রয়োজনে কেউ ঘর থেকে বের হবেন না। আসুন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকলে সতর্ক থাকি এবং বেশী বেশী আল্লাহর কাছে দোয়া চাই’।

শনিবারে ধামগড়ে ১ হাজার অসহায় পরিবার কে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দিবে আয়নাল হক ফাউন্ডেশন

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সমগ্র নারায়ণগঞ্জ জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করায় দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষরা আর্থিক ও খাবার সংকটে পড়েছে বিধায় বন্দর উপজেলার জাঙ্গালে প্রতিষ্ঠিত ‘আয়নাল হক ফাউন্ডেশন’ এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, মরহুম আয়নাল হক চেয়ারম্যানের সুযোগ্য পুত্র, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব আজিজুল হক (আজিজ) এবং তার ছোট ভাই ও ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল হোসেনের সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতায় ১১ এপ্রিল শনিবার অত্র ধামগড় ইউনিয়নের ১ হাজার নিম্ন আয়ের ও অসহায় পরিবারের বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়া হবে জানা গেছে।

উক্ত খাদ্যসামগ্রী পৌছে দেয়ার প্রস্তুতির বিষয়ে বুধবার সন্ধ্যায় আজিজুল হক (আজিজ) গণমাধ্যমকে জানান ‘শ্রমিক, দিনমজুর ও নিম্ন আয়ের মানুষরা কাজে যেতে পারছেনা। ফলে তারা খাবারের সমস্যা বোধ করছেন বিধায় তাদের পাশে থাকতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আহবান জানিয়েছেন। সেলক্ষ্যে ‘আয়নাল হক ফাউন্ডেশন’ এর পক্ষ থেকে আমি ও আমার ছোট ভাই কামাল হোসেনের উদ্যোগে ১ হাজার অসহায় পরিবারের বাড়িতে চাল, ডাল ও আলু পৌছে দেয়ার প্রস্ততি নিয়েছি। প্যাকিং করতে আগামী ২ দিন লাগবে। অতঃপর লোগসমাগম ছাড়া ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শনিবার আমরা খাদ্যসামগ্রী অসহায়দের বাড়িতে পৌছে দিব ইনশাআল্লাহ। সবাই ঘরে থাকুন। অযথা বাইরে বের হবেন না। নিজে বাঁচুন ও অন্যকে বাঁচতে সহায়তা করুন। আসুন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকলে সতর্ক থাকি এবং বেশী বেশী আল্লাহর কাছে দোয়া চাই’।

আওয়ামীলীগ নেতা কালামের উদ্যোগে সোনারগাঁয়ে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করলেন জেলা পরিষদ সদস্য মাছুম

নিউজ ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালামের উদ্যোগে করোনায় ঘরবন্ধি ৩ শত অসহায় পরিবারকে নিয়ে পাশে দাঁড়াতে নিত্য প্রয়োজনীয় খাবার বিতরণ করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ সদস্য মোস্তাফিজ রহমান মাসুম।

মঙ্গলবার(৭ এপ্রিল) বিকেল ৫ টায় উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের বাড়ি মজলিশ এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরে ঘরে ত্রান সামগ্রী পৌঁছানোর প্রথম পর্ব পরিচালনা করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ সদস্য ও সোনারগাঁও রিপোর্টার্স ক্লাবের সিনিয়র সভাপতি মোস্তাফিজ রহমান মাসুম।

তিনি বলেন, মাহফুজুর রহমান কালাম ভাইয়ের পক্ষে আজ ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেয়া প্রথম পর্ব শুরু করলাম। প্রাথমিক ভাবে আমরা দেশের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে সংকটময় মুহূর্তে ৫ শত অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছি। মানুষের সহায়তায় আমরা এই পরিস্থিতি না কাটিয়ে উঠা পর্যন্ত আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের সিনিয়র সভাপতি করিম হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা খায়রুল ইসলাম বিজয় প্রমুখ।

সোনারগাঁও জনপ্রতিনিধিদের ব্যক্তিগত উদ্যোগে মোগরাপাড়া ইউনিয়ন ৬ নং ওয়ার্ডে পাঁচ গ্রামে ৪০০পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে টানা ১০দিন সমগ্র দেশ লকডাউন থাকায় দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষরা আর্থিক ও খাবার সংকটে পড়েছে বিধায় সোনারগাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, মোগরাপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু, ও সাবেক এমপি মরহুম মোবারক সাহেবের সুযোগ্য পুত্র এরফান হোসেন দ্বীপ।
-এদের ব্যক্তিগত উদ্যোগে মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ৪০০ শত পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। সেক্ষেত্রে, অসহায় ও দুঃস্থ প্রতিটি পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়। ৬ই এপ্রিল দুপুরে মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডে, ইলিয়াসদি, ও কালীগঞ্জ কাজিরগাঁও,নয়াগাঁও,মাঝের চর, পাচ গ্রামের -হতদরিদ্র ৪০০ পরিবারের মাঝে। জনপ্রতিনিধিদের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ৪০০পরিবারের মাঝে খাবার সামগ্রহী বিতরণ করেছেন। আনুষ্ঠানিকভাবে খাদ্য সামগ্রাহী প্যাকেট মোগরাপাড়া ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড মোঃ আনোয়ার হোসেন (মেম্বার) সার্বিক তত্বাবধানে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে অসহায়দের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রাহী পৌছে দেয়া হয়েছে। সময় উপস্থিত ছিলেন মোঃ ছিদ্দিক প্রধান, হযরত আলী টুকুন, আরমান হোসেন সাগর,সালাউদ্দিন,নজরুল, সিরাজ, আবদুল কাশেম, আরিফ। আনোয়ার হোসেন মেম্বার জানান, সরকার ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন কিন্তু সরকারের একার পক্ষে দুর্যোগ মোকাবেলা সম্ভব নয়। প্রত্যেককে যার যার অবস্থান থেকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। জনপ্রতিনিধিরা ও স্বেচ্ছাসেবক ও উপজেলা প্রশাসনের এ দুর্যোগ মোকাবেলায় ব্যাপক ভূমিকা পালন করছেন সেজন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আর সেই সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মোগরাপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবু ও এরফান হোসেন দ্বীপ কে সোনারগাঁ মোগরাপাড়া ইউনিয়ন বাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। তারা সবসময় সুখে-দুঃখে আমাদের পাশে আছেন থাকবেন।

তিন ভাইয়ের  নিজস্ব অর্থায়নে ব্যাক্তিগত উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ

নিউজ ডেস্ক : কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাসের কারনে ঘরবন্ধি ও ক্ষতিগ্রস্থ দিনমজুরসহ কর্মহীন সাধারন মানুষের মধ্যে তারা তিন ভাই । মোঃ সবুজ, মোঃসাগর, মোঃসজিব এদের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ১০০ পরিবারের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন।
তিনভাই এর নিজস্ব অর্থায়নে শুক্রবার সকালে বন্দর উপজেলা মদনপুর ইউনিয়ন কেওঢালা ৮ নং ওয়ার্ড মুসলিমপাড়া, এলাকায় নিম্নআয়ের শতাধিক পরিবারের মাঝে চাল-ডাল-তেল-লবণ, আলু, সাবান, বিতরণ করেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তিনভাই সবুজ, সাগর, সজিব
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী নির্বিশেষে এলাকার শতাধিক পরিবারের মাঝে চাল-ডাল-তেল-লবণ আলু সাবান খাদ্য সামগ্রহী বিতরণ করেন তারা জানান ১০০
পরিবারের মাঝে খাবার বিতরণ করেছি। দেশের পরিস্থিতি ভালো না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মকাণ্ড অব্যাহত থাকবে।’ তারা এই কার্যক্রমে বন্দরের সকল বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

অসহায় ২ শত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন সাদিপুর ইউপি: যুবলীগ সভাপতি দেলোয়ার হোসেন

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাস থেকে নিজে বাঁচুন অপরকে বাঁচান এবং সকলে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। ভাইরাস (কেভিড-১৯) এর কারনে সারাদেশের ন্যায় সোনারগাঁওয়ের সাদিপুরে ঘরবন্ধি ও ক্ষতিগ্রস্থ দিনমজুরসহ কর্মহীন সাধারন মানুষের মধ্যে ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করেছেন সাদিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন।
বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭ টায় উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ২০০ টি খেটে খাওয়া পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এতে রয়েছে ১০ কেজি চাল, ৩ কেজি আলু, ১ লিটার তেল, লবণ, পিয়াজ সহ আরো অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।
সোনারগাঁও উপজেলা সাদিপুর ইউনিয়নের কাঠালিয়া পাড়া, বড়ইবাড়ি, নয়াপুর সহ বিভিন্ন এলাকার কর্মহীন ও হত দরিদ্রদের মধ্যে এই ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। এ সকল ত্রানের মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, পেঁয়াজ, আলু, তৈল, ইত্যাদি।
সাদিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন জানায়, এলাকাবাসীর সহযোগিতায় প্রায় ২০০টি অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছি। দেশের পরিস্থিতি ভালো না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মকাণ্ড অব্যাহত থাকবে।’ তিনি এই কার্যক্রমে সোনারগাঁয়ের সকল বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

সোনারগাঁয়ে জামপুরে দেওয়ান কামালের উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ

নিউজ ডেস্ক : কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাসের কারনে ঘরবন্ধি ও ক্ষতিগ্রস্থ দিনমজুরসহ কর্মহীন সাধারন মানুষের মধ্যে নিজের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে খাবার বিতরণ করেছেন নারায়নগঞ্জ জেলা তাঁতীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি দেওয়ান কামাল।
দেওয়ান কামালের। নিজস্ব অর্থায়নে বৃহস্পতিবার সকালে সোনারগাঁ জামপুর ইউনিয়ন আমবাগ থেকে ওটমা পর্যন্ত, এলাকায় নিম্নআয়ের শতাধিক পরিবারের মাঝে চাল-ডাল-তেল-লবণ, আলু, সাবান, বিতরণ করেন দেওয়ান কামাল।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী নির্বিশেষে এলাকার শতাধিক পরিবারের মাঝে চাল-ডাল-তেল-লবণ আলু সাবান খাদ্য সামগ্রহী বিতরণ করেন তিনি আরো জানান কোরোনা ভাইরাসের কারণে এলাকার খেটে খাওয়া মানুষের যতদিন ঘরে অবস্থান করতে হবে ততদিন তিনি তাদের পাশে থাকবেন এছাড়া জামপুর এর কোন দরিদ্র পরিবারে খাবারের জন্য কষ্ট করতে হবেনা। 

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget