সোনারগাঁও থেকে খুনি মাজেদের লাশ ৭২ ঘন্টার মধ্যে অপসারণ চাই….মাহফুজুর রহমান কালাম



সোনারগাঁও থেকে খুনি মাজেদের লাশ ৭২ ঘন্টার মধ্যে অপসারণ চাই….মাহফুজুর রহমান কালাম

নিউজ ডেস্ক : সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম বলেন,সোনারগাঁও থেকে বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের লাশ ৭২ঘন্টার মধ্যে অপসারণ করতে হবে। আমরা জাতীর পিতার হত্যাকারীর লাশ এই সোনারগাঁওয়ের পবিত্র মাটিতে রাখতে দেবো না। প্রশাসনের কাছে আমাদের দাবী থাকবে যদি ৭২ ঘন্টার মধ্যে খুনি মাজেদের লাশ সোনারগাঁও থেকে অপসারণ না করা হয় তার দেহাবশেষ তুলে আমরা নদীতে ভাসিয়ে দিবো। খুনি মাজেদের জন্য সোনারগাঁওকে অপবিত্র করতে দেবো না।
আজ সোমবার সকাল ১১টায় ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের মোগড়াপাড়া চৌরাস্তায় অবস্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের সামনে খুনি মাজেদের লাশ অপসারণের দাবীতে মানববন্ধনে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম এসব কথা বলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আব্দুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকরের পর তার লাশ কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের হোসেনপুর এলাকায় দাফন করা হয়েছে।
মাজেদের শ্বশুরবাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে শনিবার দিনগত রাত ৩টার দিকে তার লাশ দাফন করা হয়।এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনির লাশ সোনারগাঁওয়ে দাফন করার খবর সকালে বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সাধরণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
লাশ দাফনের পরের দিন সকালে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালামের নির্দেশে তার ছোট ভাই জেলা পরিষদের সদস্য ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেল মাহমুদ সোনারগাঁও থেকে খুনি মাজেদের লাশ অপসারণের প্রতিবাদে মূখর হয়ে উঠেন। অনেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সোনারগাঁওয়ে মাজেদের লাশ দাফন করায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ ও লাশ অপসারণের দাবি জানান।
সোনারগাঁও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ খুনি মাজেদের লাশ সোনারগাঁওয়ে দাফন করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
মানববন্ধনে বক্তারা একটাই দাবী জানান মাজেদের লাশ অপসারণ না করা হলে তা কবর থেকে তুলে মেঘনা নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হবে।
মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম, জেলা যুব আইনজীবি পরিষদের সভাপতি এডভোকেট ফজলে রাব্বি, সাবেক চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দীন সাবু,উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাসেল মাহমুদ,পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী আমজাদ হোসেন,আওয়ামীলীগ নেতা করিম,আওয়ামীলীগ নেতা শামসুজ্জামান সামসু,উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল ইসলাম বিজয়, পিরোজপুর ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন, সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগ সহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Post a Comment

[blogger]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget