সোনারগাঁওয়ে নাটকীয় ভাবে সাবেক স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন

 সোনারগাঁওয়ে নাটকীয় ভাবে সাবেক স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন


নিউজ ডেস্ক ঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মোগড়াপাড়া চৌরাস্তার বাড়ী মজলিশ এলাকায় একটি বাসা বাড়িতে বেড়াতে এসে সাবেক স্বামি রুবেলের হাতে আঁখি আক্তার (২৫) নামের এক কন্যা সন্তানের মা খুন হয়েছেন বলে জানা যায়।

আজ (২৫ আগষ্ট) মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে মোগরাপাড়া চৌরাস্তার বাড়ি মজলিশ এলাকায় মুসলেম মিয়ার ভাড়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ-খ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম,সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হোন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা মর্গে প্রেরণ করার প্রস্তুতি চলছে ।

ঘাতক স্বামী রুবেল (৩০) উপজেলার মোগরপাড়া ইউনিয়নের কাইকারটেক মুগারচর এলাকার মফিজুলের ছেলে। ঘটনাস্থল বাড়ির ভাড়াটিয়া এবং রুবেলের আত্নীয় নিপা আক্তার জানান, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে রুবেল তার সাবেক স্ত্রী আঁখিকে নিয়ে আমার বাড়িতে আসে। তারা জানান, দুজনের মধ্যে যে ভুল বোঝাবুঝি আছে তা কথা বলে মিমাংসা করবেন। সেজন্য তাদের আমার ঘরে বসতে দিতে হবে। আমি পূর্ব পরিচিত বিধায় তাদের ঘরে বসতে দিয়ে আমি বাড়ির ছাদে যাই। ছাদ থেকে ফিরে রুমের প্রবেশ করার সময় আমি কিছু বোঝার আগেই রুবেল আমাকে ধাক্কা দিয়ে রুম থেকে বের হয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে রুমে গিয়ে দেখি তার স্ত্রী আঁখির গলাকাটা লাশ পড়ে আছে। এ ঘটনায় আমি কিছুক্ষনের বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ি। পরে মোগরাপাড়া বাজারে গিয়ে রুবেলের বাবা মফিজুরকে বিষয়টি জানাই। পরে দু’জনই থানায় গিয়ে পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করি। নিপা আরো জানান, একই এলাকার হাবিবপুর ভাড়া থাকার সময় রুবেলদের সাথে তাদের পরিচয় হয়। সেই সুত্র ধরে আজ সকালে সে আমার বাড়িতে আসে তার স্ত্রী সাথে কথা বলবে বলে। পুলিশ জানান, রুবেলের সাথে গত ৬ বছর আগে বিয়ে হয় বন্দর উপজেলার বাদুরী এলাকা নজরুল ইসলামের মেয়ে আঁখির সাথে। তাদের দাম্পত্য জীবনে হোমাইরা নামের ৩ বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। গত ৩ মাস আগে পারিবারিক কোলহের জের ধরে তাদের বিচ্ছেদ ঘটে। মঙ্গলবার সকালে তাকে একটি বাসায় ডেকে নিয়ে এসে গলা ও পায়ের রগ কেটে হত্যা করে সে পালিয়ে যায়। পুলিশ আরো জানায়, হত্যার নমুনা দেখে মনে হচ্ছে আঁখি ডেকে এনে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ রুবেলের পিতা মফিজুল ও নিপাকে জিঞ্জেসাবাদের জন্য আটক করেছে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম বলেন, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে আমি ঘটনাস্থলে এসে নিহত আঁখির রক্তাক্ত লাশ পরে থাকতে দেখি।ঘাতক স্বামী রুবেল ঘটনার পরপরই পালিয়ে যায়।লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হচ্ছে। ঘাতক রুবেলকে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলমান থাকবে।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, বাড়ি মজলিশ এলাকা থেকে এক নারীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা মর্গে প্রেরণ করেছে। তদন্তের জন্য নিপা আক্তার ও রুবেলের বাবাকে আটক করা হয়েছে। 

Post a Comment

[blogger]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget